তথ্য

একটি মোটরসাইকেল এর ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে?

1 min read

মোটরসাইকেল এর ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে?

তথ্যসুত্র: BISHAL MIZAN

আজ পর্যন্ত যত ইঞ্জিন তৈরি করা হয়েছে। সব ইঞ্জিনে ঘূর্ণন শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বানানো হয়েছে। যদিও ভিন্ন ভিন্ন ইঞ্জিনের ডিজাইন ভিন্ন ভিন্ন হয়, কিন্তু সব ইঞ্জিনের কাজ একইরকম শুধু বিমানের জেট ইঞ্জিন ছাড়া।

এখন আমরা মটরসাইকেল ইঞ্জিনের প্রথম থেকে বিভিন্ন অংশের কাজ গুলো যানার চেষ্টা করি।
প্রথমে যানি ইঞ্জিন কিভাবে Start হয়…

ইঞ্জিন Start হয় দুইটি পদ্ধতিতে, একটি হলো kick start এবং আরেকটি হলো self start।

kick start এর ম্যাকানিজম হল, যখন kick starter নিচের দিকে যোরে প্রেসার দেওয়া হয়। তখন kick starter পিনিয়ামকে পাওয়ার দেয়, পিনিয়াম Clutch Hubকে ঘুড়ায়, Clutch Hub আবার Crankshaft ঘুড়ায় Crankshaft ইঞ্জিনকে পাওয়ার দেয়।এভাবেই ইঞ্জিন Start হয়।

Self start পদ্ধতিতে Electric Motor ইঞ্জিনকে Start করার জন্য পাওয়ার দেয়। ইঞ্জিন চালু হওয়ার পর Starter motor কে ইঞ্জিন থেকে আলাদা করতে হয়। আমরা এর জন্য Onebe clutch ব্যবহার করতে পারি। Onebe clutch এর মধ্যে বিভিন্ন অংশ থাকে।
যেমন Outer Race inner Race এই দুইটার মাঝখানে Roller থাকে।
যখন stater Motor, outer Race কে ঘুড়ায় তখন Outer Race, inner Race গুড়াই ও Roller দুইটাকে ঘুড়াতে লাগে। যার মাধ্যমে ইঞ্জিনে পাওয়ার যায়। ইঞ্জিন চালু হওয়ার পর inner Race Stater Motor থেকে বেশি যোরে গুড়তে থাকে। যার কারনে Roller আলাদা হয়ে যায়। এর ফলে Outer Race পাওয়ার ট্রান্সফার বন্ধ করে দেয়। আমরা যানলাম ইঞ্জিন কিভাবে স্টাট হয় এখন বাকি বিষয় গুলো একে একে যানি।

ইঞ্জিন প্রতিনিহত কিভাবে চলে এই সাইকেলটি বুঝতে হয়ে আমার যানতে হয়ে। পিস্টন কিভাবে শক্তি উৎপন্ন করে। পিস্টনের বিভিন্ন stroke রয়েছে। তা এখন যানবো।
পিস্টন এর উপরে চারটি System থাকে Spark plug,Chain হেন্ডেল, intake Bulb or Exjuss Bulb,,,,,, intake Bulb or Exjuss Bulb কে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য এক Timeing chain কে ব্যবহার করা হয়।

পিস্টনের বিভিন্ন Stroke রয়েছে প্রথম Strokeকে পিস্টনটি নিচের দিয়ে চলে যায়। তখনি ইনটেক বাল্পটা On হয়ে যায়। ইনটেক বাল্ল on হওয়া সাথে সাথে বাতাল এবং পুয়েল সিলিন্ডারে প্রবেশ করে।
এবং সিলিন্ডারে প্রবেশ করানোর অবস্থানকে বলা হয় Intake stroke এবার দিত্বীয় Strokeকে বাতাস ও পুয়েল সংকোচিত হবে। তখন ইস্পাক প্যাল্গ পায়ার করবে। এবং সিলিন্ডারের মধ্যে ব্যালাট হবে। এই অবস্থানকে বলা হয়। Compressions stroke এর পর পিস্টন উপরের দিগে উঠতে থাকে তখন Exjoss bulb on হয় এবং বিশপুরুনে উৎপন্ন হওয়া কার্বন ডাই অক্সাইড ও অন্যন্য গ্যাস সিলিন্ডার থেকে বের হয়ে যায়। এই ভাবে সাইকেলটি চলতে থাকে।

এখন আসি স্পার্ক প্লাগ কিভাবে Hight Volt এর সৃষ্টি করে। কারন পিস্টনে স্পার্ক প্লাগ ২০ হাজার Volt দিয়ে ব্লাস্ট করাই কিন্তু এতো Volt কোথা থেকে আসে। তাহলে স্পার্ক প্লাগ কিভাবে কাজ করে। জেনে নেই

ইঞ্জিন বিদুৎত উৎপন্ন করার জন্য একটি কয়েল বসানো হয়। কয়েলের একটি তালিকা দেওয়া হল,কয়েল থেকে শুদু ১২Volt উৎপন্ন হয়। কিন্তু 12Volt দিয়েতো ইঞ্জিনে Stater হবে না। তার জন্য 12Volt কে বৃদ্ধি করার জন্য মটর সাইকেলে একটি CDI ব্যবহার করে যা ১২Voltকে ১০০ গুন বৃদ্ধি করে, CDI এর মধ্যে একটা কেপাসিটর আাছে যেটা চাজকে জমা রাখে। পেলাউল এর মধ্যে পিকাপ কয়েল থাকে। পিকাপ কয়েলে একটা ম্যাগনেট থাকে যার উপরে কয়েল থাকে। যখন পেলাউল চুম্বক ঘুড়ে তখন পিকাপ কয়েলে Voltage উৎপন্ন হয়। এই Voltage CDI UNite এর মধ্যে একটা সুইজকে চালু করে দেয়। তার কারনে সব চাজ কেপারিটর থেকে আলাদা হয়ে যায়।

এই উৎপাদিত voltageকে আরো বাড়ানোর জন্য Ignition Coilকে ব্যবহার করা হয়। Ignition Coil এক Step- up Transfermer যা Input Voltage কে ২০০ গুন বাড়ায়ে দেয় যা Sprak Pulg কে পায়ার করতে সাহায্য করে।

পিস্টন কানেক্টরকে ঘুড়ায়, কানেক্টর Crankshafts ঘুড়ায় Crankshafts Clutch Hub ঘুড়ায় Clutch Hub Transmission System ঘুড়ায় Transmission System মটর সাইকেল গতি কম বেশি করতে পারে। এটাকে সহজ ভাষায় গিয়ার বলতে পারেন।

লেখায় ভুল ভ্রান্তি ক্ষমা করবেন…

ভুল ত্রুটি কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। ধন্যবাদ!

5/5 - (1 vote)
admin

Leave a Comment